ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে তা দেখুন

বন্ধুরা, আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে। এছাড়াও আরো জানব ছেলেদের চেহারা সুন্দর করার খাবার ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায়,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম। চলুন দেখে নেই।

পেজ কনটেন্ট সূচিপত্র:ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে।

ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায়।ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে।

সাধারণত চেহারার প্রতি মেয়েরাই বেশি যত্নশীল। ছেলেরা নিজের ত্বকের প্রতি খুব বেশি একটা যত্নশীল হয় না। খুব কম ছেলেরাই আছে যারা তাদের যত্ন নেয়। যত্ন না নিতে না নিতে সুন্দর ছেলেটার ত্বক ও এক সময় নষ্ট হয়ে যায়। 

রোদে পুড়ে চেহারায় কালচে ভাব চলে আসে, চোখের নিচে কালো করে, আবার ব্রণের সমস্যা তো আছেই। এরকম নানার সমস্যাই ছেলেরা ভুগতে থাকে। কিন্তু তারা বোঝে না কিভাবে তাদের এই সমস্যা গুলো সারিয়ে তুলবে।

এজন্য শুরু থেকেই ত্বকের যত্ন নিতে হয়। নয়তো ছেলেদের সব এভাবেই দিন দিন নষ্ট হয়ে যাবে। ঠিকমতো যখন নিজের যে কোন জিনিসই ভালো রাখা যায়। আর যত্নের অভাবে চকচকে জিনিসটা ও একদিন নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

অনেক ছেলেরাই গেছে যারা রূপচর্চা কথাটা শুনলেই ভাবে যে এটা শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য। কিন্তু না ছেলেদেরও রূপচর্চা করার দরকার আছে। ছেলেদের ত্বকের ও যত্নের প্রয়োজন। সারাদিন কাজের পরে তাদের ত্বক ও নষ্ট হয়ে যায়।

ছোট বাচ্চাদের ঘামাচি হলে করণীয়

এজন্য অবহেলা না করে ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায় গুলো জানতে হবে। বিভিন্ন ভাবে ছেলেরাও তাদের ত্বকের যত্ন নিতে পারে।ছেলেদের চেহারা সুন্দর করার খাবার,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম গুলো আজকে আমি দেখাবো।

ছেলেদের চেহারা সুন্দর করার খাবার।ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায়।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য আমরা ছেলেরা বিভিন্ন ধরনের ক্রিম বা ঔষধ ব্যবহার করে থাকি ।মা অনেক সময় শরীরের জন্য ক্ষতিকর ও হতে পারে। আবার দেখা যায় কেমিক্যালযুক্ত ক্রিম ব্যবহারের ফলে তোকে উন্নতির বদলে অবনতি হয়।

ঔষধ সেবন না করে সাধারণ কিছু খাবার খেয়েই আপনি সুষম পুষ্টি পেতে পারেন। যা আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করবে। আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে অবশ্যই আপনার ত্বকের বিষাক্ত পদার্থ গুলোকে বের করতে হবে। চলুন কিছু টিপস দেখে নিই।

সকাল বেলা ঘুম থেকে ওঠে লেবু , মধু ও গরম পানির মিশ্রণ খাবেন । এটি আপনার শরীর কে ডিটক্স করতে সাহায্য করবে। লেবু এবং মধু এখানে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করবে। খালি পেটে মধু আর লেবু খাওয়ার ফলে কোষে যে টক্সিন গুলো তৈরি হয় তা বের করে দেয়। ফলে শরীর বিষমুক্ত হবে।যাদের গ্যাস্ট্রিক আলসার আছে তারা লেবুর বদলে অ্যালোভেরা বা ভিনেগার ব্যাবহার করতে পারেন।

সকাল বেলা খালি পেটে কাঠবাদাম খেতে পারেন । কাঠবাদাম ত্বকের জন্য অনেক ভালো।

ভিটামিন সি যুক্ত খাবার ত্বকের জন্য অনেক ভালো। প্রতিদিন আপনার খাবার তালিকায় ভিটামিন সি যুক্ত খাবার রাখতে পারেন। এগুলো আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করবে। ভিটামিন সি কে ত্বকের বন্ধু বলা হয়।

সবসময় রঙিন শাকসবজি ও ফলমূল খাবেন । রঙিন শাকসবজি ও ফলমূল ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে।

ছোট বাচ্চাদের ঘামাচি হলে করণীয়

ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী । পাশাপাশি এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতেও সাহায্য করে। এটি আমাদের শরীরক সূর্যের ক্ষতিকর রশ্নি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। এছাড়াও ত্বকের সজীবতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। সাধারণত উদ্ভিজ্জ্য তৈল থেকে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড পাওয়া যায়। এছাড়াও সামুদ্রিক মাছের মধ্যে প্রচুর পরিমাণ ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড থাকে।আর দেশীয় মাছের মধ্যে ইলিশ মাছ ,রুই মাছেও ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড থাকে।

ত্বকের যত্নের জন্য তৈলাক্ত খাবার খাওয়া বাদ দিতে হবে। ত্বকের জন্য তৈলাক্ত খাবার মোটেও ভালো নয়। বিশেষ করে সকালের নাস্তায় চেষ্টা করবেন তৈলাক্ত খাবার বাদ দিতে।

প্রতিদিন মিনিমাম আড়াই থেকে তিন লিটারের মতো পানি পান করতে হবে। পানি আমাদের ত্বকের জন্য অনেক ভালো।

খাবারের পাশাপাশি ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি উপায় হলো নিজেকে যতটা সম্ভব চিন্তা মুক্ত রাখার চেষ্টা করবেন। প্রাপ্ত বয়স্ক হলে দৈনিক ৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়।ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে।

সারাদিন বাইরে ঘোড়াঘুড়ি করার কারণে ছেলেদের ত্বক রোদে পুড়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা দিন দিন কমে যায়। বেশিরভাগ ছেলেরাই এই সমস্যায় ভুগতে থাকে।

রোদে পোড়া ভাব দূর করার টিপস:১/২ চা চামচ হলুদের গুঁড়া,১ চা চামচ লেবুর রস,২ চা চামচ কাঁচা দুধ ,১ চা চামচ আলুর রস ,১ চা চামচ বেসন ,১ চা চামচ মধু (শুষ্ক ত্বক হলে ) সবগুলো উপকরণ একটি বাটিতে একসাথে নিয়ে ভালো ভাবে মিশাবেন। তারপর আপনার ত্বকে লাগাবেন।১৫-২০ মিনিট পর শুকিয়ে এলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ২ দিন ব্যাবহার করবেন। এভাবে ১ মাস ব্যাবহার করলে একটা ভালো রেজাল্ট পাবেন।

লেবুর সাথে চিনি এবং মধু মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। এটি ত্বকের স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়: ২ চা চামচ চালের গুঁড়া,১ থেকে দেড় চা চামচ হলুদের গুঁড়া ,৩ চা চামচ লেবুর রস,৩ চা চামচ পানি  নিয়ে সবগুলো উপকরণ একসাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে মুখে লাগান। এরপর শুকিয়ে এলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

মুখের পাশাপাশি ঠোঁটের ও যত্ন নিতে হবে। হিস্ট্রি লেবুর রস এবং চিনি একসাথে মিক্স করে একটি টুথব্রাশের সাহায্যে ঠোঁটে উপর আলতোভাবেই ঘষুন। এতে করে আপনার ঠোঁটের মডেল চামড়া গুলো উঠে যাবে। এবং ঠোঁটকে গোলাপি করতে সাহায্য করবে। 

ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে তার উপায় গুলোর মধ্যে অন্যতম আরেকটি উপায় এখন আমি বলব।এক চা চামচ কফি পাউডার নিয়ে ভালোভাবে মিক্স করুন । এরপর এটি এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। আপনার ত্বকে লেবুতে যদি এলার্জি থাকে বা ত্বক যদি শুষ্ক হয়ে থাকে তাহলে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি যদি খুব বেশি ঘন হয়ে থাকে তাহলে কিছু পরিমাণে পানি মিশিয়ে। আপনার ত্বকে লাগান। শুকিয়ে এলে সাধারণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায় গুলোর মধ্যে অন্যতম আরেকটি উপায় দেখে নিন। দুই চা চামচ কাঁচা দুধ, এক চা চামচ লেবুর রস,এক চা চামচ চালের গুঁড়া  নিয়ে সবগুলো উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। সবগুলো উপকরণ ভালোভাবে মেশানো হলেই আপনার ত্বকে লাগিয়ে নিন। পানি নিয়ে মুখে ম্যাসেজ করে তারপর ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার ত্বকের কাজে ভাব দূর করবে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা দ্বিগুণ বাড়িয়ে তুলবে।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায় গুলো এতক্ষণে আমারা জেনেছি এবার পরবর্তী ধাপে আমরা জানব ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম।ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায়।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায় গুলো এতক্ষণে আমারা জেনেছি এবার আমরা জানব ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম। চলুন  জেনে নিই সত্যি ই কি ক্রিম ব্যবহার করে ছেলেরা সুন্দর হতে পারে।

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম:Dr.Rashel whitening Day cream, Fair and handsome,olay natural white cream, Garnier men power light ,Loreal men expert, Nivea for men।

তবে যে ক্রিম ই ব্যবহার করেন না কেন আপনার স্কিনের ধরন বুঝে ব্যবহার করবেন। কারো কারো ত্বক শুষ্ক ,কারো কারো ত্বক তৈলাক্ত,কারো সেন্সিটিভ, কারো কম্বিনেশন। তাই ত্বকের ধরণ বুঝে প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন।

ছোট ছেলে বাবুর পিক

ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম অনেক রয়েছে । তবে এই সব ক্রিমে বিভিন্ন ধরনের ক্যামিকেল থাকে। যা ত্বকের জন্য অনেক সময় ক্ষতিকরও হতে পারে। এজন্য যেটাই ব্যবহার করেন না কেন বুঝে শুনে ব্যবহার করবেন।

ফর্সা হওয়ার ক্রিম গুলো ব্যাবহার না করে আপনি দৈনিক স্কিন কেয়ার রুটিন গুলো ফলো করতে পারেন। এক্ষেত্রে নিয়মিত ফেস ওয়াশ,সিরাম,টোনার,ফেস মাস্ক, ফেস স্ক্রাবার,ফেস প্যাক , ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম প্রভৃতি ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো আস্তে আস্তে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বানাতে সাহায্য করবে।

ফর্সা হওয়ার ক্রিম মেঘে রাতারাতি ফর্সা হওয়ার চেয়ে দৈনিক স্ক্রিন কেয়ার রুটিন গুলো ফলো করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোই ভালো। তাই ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম জানতে না চাওয়াই ভালো।এর পাশাপাশি দৈনিক ঠিক মত গোসল করবেন । পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাবেন। ধূমপান থেকে দূরে থাকবেন। তাহলেই চেহারার উজ্জ্বলতা বাড়বে।

শেষ আলোচনা:ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে।

বন্ধুরা আজকে আমরা জেনেছি ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে ছেলেদের চেহারা সুন্দর করার খাবার,ছেলেদের সুন্দর হওয়ার উপায়,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়,ছেলেদের ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম।

আজকের এই পোস্টটি অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। যাতে করে তারাও জানতে পারে ছেলেরা কিভাবে সুন্দর হবে। এরকম আরো অনেক সুন্দর সুন্দর পোস্ট পড়তে  আমাদেরই আইডি ওয়েবসাইটে ভিজিট করে আসার আমন্ত্রণ রইল। আজকে এই পর্যন্তই ধন্যবাদ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url