ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমি আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে তার উপায় গুলো নিয়ে। এছাড়াও আরো জানতে পারবেন স্মার্ট বলতে কী বুঝায়, কথাবার্তা স্মার্ট হওয়ার উপায় এবং ছেলেদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায়। চলো তাহলে দেখে নেই।

পেজ কনটেন্ট সূচিপত্র:ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে।

স্মার্ট বলতে কি বুঝায়।

অনেকের মনেই প্রশ্ন রয়েছে যে স্মার্ট বলতে কি বুঝায়? স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলো জানার আগে আসুন জেনে নেই স্মার্ট বলতে কি বুঝায়।

স্মার্ট বলতে বুঝায় বুদ্ধিমত্তা ও কাজের মাধ্যমে অন্যদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা। ব্যক্তিদের যে কোন বিষয় সম্বন্ধে সাধারণ ধারণা থাকে । তারা খুব সহজেই মানুষকে পটিয়ে ফেলতে পারে। স্মার্ট লোকদের সবাই তুখুর বুদ্ধিমান বলে মনে করেন।

অনেকেই মনে করে থাকেন যে শুধু মাত্র চেহারা ও পোশাকে স্মার্টনেস থাকলেই হয়তো স্মার্ট হওয়া যায়। কিন্তু এটি একেবারেই ভুল কথা। চেহারা ও পোশাকে স্মার্টনেস থাকলে সেটা ও স্মার্ট এর অন্তর্ভুক্ত । কিন্তু আপনার যদি অন্যান্য বিষয়গুলোতে স্মার্টনেস না না থাকে তাহলে আপনি স্মার্ট হতে পারবেন না।

চেহারা ও পোশাকের মাধ্যমে হয় তো আপনি তাৎক্ষণিকভাবে স্মার্ট হতে পারবেন। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই আপনি আপনার কথা ও কাজের মাধ্যমেই সকলের কাছে ধরা পড়ে যাবেন।

অনেক লোকের মাঝে স্মার্ট ব্যক্তিরা নিজেদেরকে ফুটিয়ে তোলে। তারা তাদের কথা ও কাজের মাধ্যমে নিজেদেরকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন। ফলে তারা খুব 
সহজেই সকলের কাছে প্রিয় হয়ে ওঠে।ছোট থেকে বড় স্বপ্ন স্মার্ট লোকদের পছন্দ করে থাকে। 

প্রেগন্যান্ট হওয়ার লক্ষণ | প্রেগন্যান্ট হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণ

যেকোনো পরিস্থিতিতে তারা নিজেদের কে খাপ খাইয়ে নিতে পারে। বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে থাকতে হলে স্মার্ট হওয়া খুবই জরুরি। কিন্তু দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে আমাদের সমাজে স্মার্ট লোকের সংখ্যা খুবই কম।

স্মার্ট হওয়ার উপায়।ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে।

যার যার জায়গা থেকে সে সেই স্মার্ট হতে পারলে আমাদের সমাজ ও দেশ দুটি ই এগিয়ে যাবে। আর বর্তমান যুগে স্মার্ট লোকদের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম।
পূর্ববর্তী থাকে আমরা জেনেছি স্মার্ট বলতে কি বুঝায়। এখন আমরা জানবো ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে। চলুন দেখে নেই স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলো কি কি।

  • সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে এবং পোশাকের দিক থেকেও পরিপাটি থাকতে হবে।
  • কথাবার্তা গুছিয়ে বলা ।
  • কারো ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে অযথা কথা না বলা।
  • কারো কাছ থেকে কিছু ধার নিলে যত্ন সহকারে তা ফেরত দেওয়া।
  • জোর করে অন্যের কোন কিছু হাতিয়ে না নেওয়া।
  • সকলকে সম্মান করা।
  • কথা দিয়ে কথা রাখা।
  • যেকোনো ব্যাপারে জানতে উৎসাহী থাকুন।
  • আপনার যেকোনো আইডিয়া বা বুদ্ধিগুলো অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।
  • অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য শুনুন।
  • আপনার দুর্বলতাগুলো ডাইরিতে লিখুন।

সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে এবং পোশাকের দিক থেকেও পরিপাটি থাকতে হবে।

স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে সর্বপ্রথম উপায় হচ্ছে সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। আপনি অন্য সব দিক থেকে যত ই স্মার্ট থাকেন না কেন আপনার মুখ থেকে যদি দুর্গন্ধ আসে বা শরীর থেকে   যদি দুর্গন্ধ আসে তাহলে আপনাকে কেউ স্মার্ট ভাববে না। সবসময় জামা কাপড় ধুয়ে ইস্ত্রি করে পড়বেন। চাইলে হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন।

কারো ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে অযথা কথা না বলা।

কেউ যদি তার ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে আপনার সাথে শেয়ার না করে তাহলে আপনি আগেই জিজ্ঞেস করতে যাবেন না। তার ব্যক্তিগত ব্যাপার হলো খুঁটিয়ে খুটিয়ে জিজ্ঞেস করতে যাবে না এগুলো আনস্মার্ট এর লক্ষণ। একজন স্মার্ট লোক কখনোই এই কাজ করেন না। যদি আপনার সাথে সে নিজেই তার ব্যক্তিগত ব্যাপার বলুন এই আলোচনা করে তাহলে কিছু বলতে পারেন।

কারো কাছ থেকে কিছু ধার নিলে যত্ন সহকারে তা ফেরত দেওয়া।

একজন স্মার্ট ব্যক্তি যদি কারো কাছ থেকে কিছু ধার নেয় তাহলে তা যত্ন সহকারে ফেরত দেয়। ধরুন আপনি কারো কাছ থেকে তার গাড়িটি ধার নিয়েছেন। এক্ষেত্রে তার গাড়িটি ব্যবহার করার পর অবশ্যই নোংরা হয়ে যাবে। সেই নোংরা অবস্থায় তার বাড়িতে তাকে ফেরত দিবেন না। অবশ্যই গাড়িটি পরিষ্কার করে সুন্দরভাবে ফিরিয়ে দিবেন। স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম একটি উপায়।

জোর করে অন্যের কোন কিছু হাতিয়ে না নেওয়া।

ধরুন আপনার বন্ধুর একটি আংটি আপনার পছন্দ হয়েছে। এখন আপনি আপনার বন্ধুর কাছে নিজে থেকে সেই আংটিটি চাইবেন না। আপনার বন্ধুর যদি দিতে না চাই আপনি জোর করে সেটি নিবেন না। একজন স্মার্ট ব্যক্তি কখনোই কারো কাছ থেকে জোর করে কিছু নেয় না।

সকলকে সম্মান করা।

আমরা অনেকেই আছি যারা বড়দের সম্মান দিয়ে থাকি কিন্তু ছোটদের তাদের ন্যায্য সম্মানটুকু দেই না। আবার অনেক ব্যাপারেই ছোটদের বঞ্চিত করে থাকি। হতে পারে সেই ছোট বাচ্চা নাকি পরবর্তীতে সে আর আপনাকে বা আমাকে সম্মান করবেনা। এজন্য সকলকে সম্মান করা উচিত।

কথা দিয়ে কথা রাখা।

ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হতে পারে তা অন্যতম একটি উপায় হল সর্বদা কথা দিয়ে কথা রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করবেন। যেই কথাটি আপনি রাখতে পারবেন না সেই কথা কখনোই দিবেন না। আগে থেকে না বলে দিবেন। আর আর কথা দেওয়ার সময় অবশ্যই ভেবে চিন্তে কথা দিবেন যাতে সেই কথা আপনি রাখতে পারেন।

যেকোনো ব্যাপারে জানতে উৎসাহী থাকুন।

সব সময় নতুন নতুন যে কোন ব্যাপারে জানার জন্য উৎসাহী থাকুন। ভালোবাসার গুলো জানার পর সেগুলোর অভিজ্ঞতা নেওয়ার চেষ্টা করুন। খারাপ ব্যাপার গুলো জানলেও সেগুলোর অভিজ্ঞতা নিতে যাবেন না। একজন স্মার্ট ব্যক্তি সর্বদাই যে কোন ব্যাপারে জানতে উৎসাহী থাকে। স্মার্ট ব্যক্তিরা সর্বদা বিভিন্ন রকমের বই পড়ে থাকে। এছাড়াও তারার সংবাদ এবং গুগল থেকেও অনেক কিছু জানার চেষ্টা করেন।

প্রাথমিক চিকিৎসার জনক কে | প্রাথমিক চিকিৎসার উদ্দেশ্য কি


যেকোনো ব্যাপার জানার পাশাপাশি যে কোন নতুন কাজ শিখতেও উৎসাহী থাকুন। স্মার্ট ব্যক্তিদের নতুন নতুন কাজ শিখতে ইচ্ছে থাকে। আপনি হয়তো ভাবছেন এই কাজটি শিখে আমি কি করবো কিন্তু কার কখন কি কাজ লেগে যায় বলা যায় না। হয়তো আপনি এখন যে কাজটি শিখছেন সেটা এখন কাজে না লাগলে ভবিষ্যতে আপনার কাজে লাগবে।

আপনার যেকোনো আইডিয়া বা বুদ্ধিগুলো অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।

আপনার মাথায় নতুন নতুন যে বুদ্ধি আসবে সেগুলো আপনার পাশের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। এতে করে আপনার বুদ্ধিগুলো কতটুকু কার্যকর হবে তা কিছুটা হলেও ধারণা পাবেন। আবার আপনার কথাগুলো  শুনে আপনার পাশের মানুষের প্রতিক্রিয়া গুলো কি রকম সেটাও বুঝতে পারবেন। লোকে আপনার প্রতিটি কতটুকু গ্রহণ করবে তা পছন্দ করবে সেটাও বুঝতে পারবে না।

অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য শুনুন।

সব সময় অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য বা ভিডিও দেখুন। এতে করে আপনার অনেক কিছুর প্রতি আগ্রহ বাড়বে। হয়তো যে কাজটির প্রতি আপনি কখনোই আগ্রহ ছিল না সেই কাজটির প্রতিও আপনার আগ্রহ আসতে পারে। এতে করে আপনার মনোবল ১০০ গুণ বেড়ে যাবে। আপনি আপনার জীবনের সফলতা খুঁজে বেড়াবেন।

আপনার দুর্বলতাগুলো ডাইরিতে লিখুন।

স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি উপায় হল নিজের দুর্বলতা কোন ডায়েরীতে লিখে রাখুন। কোন কোন বিষয়ে আপনার দুর্বলতা রয়েছে সেগুলো একটি ডাইরিতে লিখে রাখুন এবং তার একটি একটি করে শুধরানোর চেষ্টা করুন।

পরবর্তী ধাপে আমারা কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়ার উপায় হওয়ার উপায় গুলো সম্বন্ধে বিস্তারিত জানব।

কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়ার উপায়।স্মার্ট হওয়ার উপায়।

আমরা অনেকেই মনে করি বাংলার ভিতরে দু-চারটে ইংলিশ বললে হয়তো কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়া যাবে। কিন্তু শুধু চারটে ইংলিশ বললেই কথাবার্তায় স্মার্টনেস আসবে
না। কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়ার উপায় খুঁজতে হলে অবশ্যই বিভিন্ন বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে


সর্বপ্রথম যেটা করতে হবে সেটা হচ্ছে আপনার প্রতিটা বর্ণের উচ্চারণ সঠিক করতে হবে। প্রতিটা শব্দ যখন আপনি ঠিকভাবে উচ্চারণ করবেন তখন আপনার কথাটি শুনতেও ভালো লাগবে।

সব সময় শুদ্ধ ভাষায় কথা বলার চেষ্টা করবেন। আঞ্চলিকতা পরিহার করবেন। অথবা জায়গা বুঝি আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলতে পারেন। স্কুল-কলেজ ,অফিস, আদালতে আঞ্চলিক ভাষায়। এতে আপনার স্মার্টনেস নষ্ট হয়ে যাবে।

সব সময় আস্তে আস্তে গুছিয়ে গুছিয়ে কথা বলার চেষ্টা করবেন। খুব বেশি দ্রুত কথা বলতে যাবেন না তাহলে অপরজন আপনার কথা কিছুই বুঝতে পারবে না। যে কোন কথা বলার আগে ভেবে চিন্তে কথা বলবেন।

শুধুমাত্র নিজে কথা বললেই হবে না আপনি যার সাথে কথা বলবেন তার কথাগুলো আপনাকে মনোযোগ দিয়ে শুনতে হবে। কথা বলার সময় তার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলবেন। যদি কথা বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে তার ঠোঁটের দিকে তাকাতে পারেন। অপরজনের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনতে পারলে আপনিও সুন্দরভাবে তার সাথে কথা বলতে পারবেন। কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম।

ছোট ছেলে বাবুর পিক

পরবর্তী ধাপে মেয়েদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায় সম্পর্কে জানব।

মেয়েদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায়।ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে।

বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ ছেলে-মেয়ে উভয়েরই থাকে। মেয়েরা যেমন চাই ছেলেদের সামনে স্মার্ট হতে ছেলেরা কেমন চায় এদের সামনে স্মার্ট হতে।কিন্তু অনেক ছেলেরাই জানেন না  মেয়েদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায় গুলো কি কি।
মেয়েদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায় :

  • সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে এবং পোশাকের দিক থেকেও পরিপাটি থাকতে হবে।
  • হালকা পারফিউম ব্যবহার করতে পারেন।
  • চুলগুলো যেন এলোমেলো না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন।
  • কথাবার্তা গুছিয়ে বলবেন।
  • মেয়েদের কাছে কথা দিয়ে কথার খেলাপ করবেন না এতে করে আপনার উপর থেকে তার বিশ্বাস ভেঙে যাবে।
  • কখনো কোনো ব্যাপারে জোর করবেন না।
  • সব সময় তাকে সম্মান দেবেন। নারীদেরকে সম্মান করেন এমন ছেলেদেরকে নারীরা বেশি করেন।
  • এমন কোন কথা বলবেন না যাতে সে মনে কষ্ট পায়।

শেষ আলোচনা:স্মার্ট হওয়ার উপায়।

তো বন্ধুরা আজকে আমি আলোচনা করেছি ,স্মার্ট বলতে কি বুঝায়,স্মার্ট হওয়ার উপায়,ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে,কথাবার্তায় স্মার্ট হওয়ার উপায়,মেয়েদের কাছে স্মার্ট হওয়ার উপায়।

আশা করি পোস্টটি বুঝতে পেরেছেন, ছেলেরা কিভাবে স্মার্ট হবে। পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। এবং কোথাও কোন কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে পোস্টটি আবার মনোযোগ সহকারে পড়ুন অথবা কমেন্ট বক্সে জানান।

এরকম আরো অনেক সুন্দর সুন্দর পোস্ট করতে আমাদের অর্ডিনারি আইটি ওয়েবসাইট ভিজিট করে আসার আমন্ত্রণ রইল। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।আজকে এই পর্যন্ত।
 সমাপ্ত।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url